বিশ্বের সবচেয়ে বিপদসঙ্কুল রাস্তাগুলির একঝলক
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture
  • picture

পথে সঠিকভাবে চলতে গেলে, বিশেষ করে যদি ব্যক্তিগত গাড়িতে করে যেতে হয়, তাহলে সিট বেল্ট বেঁধে, ট্রাফিক নিয়ম মেনে, কম গতিতে গাড়ি চালালেই আর কোনও সমস্যা হওয়ার নয়। এপর্যন্ত সব ঠিকই রয়েছে। তবে পাহাড়ি রাস্তায় চলতে গেলে এসবের সঙ্গে অত্যন্ত বেশি করে মনোসংযোগ করা প্রয়োজন। তাহলেই অনায়াসে পাহাড়ের রাস্তায় আপনিই গাড়ি চালিয়ে দিব্যি মজা পাবেন। লে-লাদাখের দিকটাতে অনেকেই বাইক বা গাড়ি নিয়ে চালিয়ে এসেছেন। এমনকী উত্তরবঙ্গের রাস্তায়ও গাড়ি চালানোর অভিজ্ঞতা অনেকেরই রয়েছে। তবে বিশ্বের কয়েকটি জায়গায় এমন কয়েকটি রাস্তা রয়েছে, সেখানে পাকা ড্রাইভাররাও গাড়ির স্টিয়ারিং হাতে নেওয়ার আগে হাজারবার ভাবতে বাধ্য হবেন। আসুন দেখে নিন বিশ্বের এমন কিছু ভয়াবহ রাস্তার ছবি ও সঙ্গে কিছু তথ্য যা দেখলে হাড় হিম হওয়ার জোগাড় হবে।

ট্রান্স সাইবেরিয়ান হাইওয়ে, রাশিয়া
সাত হাজার মাইল লম্বা এই রাস্তাটি মস্কো থেকে শুরু হয়ে ইয়াকুটস্কে গিয়ে শেষ হয়েছে। বর্ষার সময়ে কাদার পিচ্ছল এই রাস্তা রাশিয়ার মানুষের কাছে মুর্তিমান বিভীষিকা।

ট্রান্সফাগারসন, রোমানিয়া
৫৬ মাইল দীর্ঘ এই রাস্তাটিতেও পদে পদে রয়েছে বিপদসঙ্কুল হেয়ারপিন বাঁক।

জোজি লা পাস, ভারত
পাহাড় কেটে তৈরি এই রাস্তাটির পদে পদে রয়েছে ভয়ঙ্কর বিপদ। ভারতের অন্যতম বিপদসহ্কুল রাস্তা এটি। তীব্র হাওয়া ও তুষারপাত এই এলাকায় গাড়ি চালানো অসম্ভব করে তোলে।

তোরোকো জর্জ, তাইওয়ান
পাহাড়ের গা ঘেঁষে যাওয়া এই রাস্তাটি বড় পাথরে কেটে তৈরি হয়েছে। কিছুটা পর পরই অন্ধ বাঁক রয়েছে এই রাস্তায়। বছরে অন্তত চারবার সাইক্লোন হয় এই এলাকায়। একইসঙ্গে ধস নেমে বিপদ নেমে আসে রাস্তায়।

স্তেলভিও পাস, ইতালি
এই হাইওয়েটি আল্পস পর্বতের মধ্য দিয়ে গিয়ে ইতালির লোম্বার্দি এলাকাকে অস্ট্রিয়ার সঙ্গে জুড়েছে। নৈগর্সিক সৌন্দর্য অসাধারণ হলেও এই রাস্তায় ৪৮ টি হেয়ারপিন বাঁক রয়েছে যা একে আরও ভয়াবহ করে তুলেছে।

স্কিপার্স ক্যানিয়ন, নিউ জিল্যান্ড
কিউয়ি গাড়ি বিক্রেতারা স্কিপার্স ক্যানিয়নে দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়ির ইনস্যুরেন্স কভার করে না। এতটাই ভয়ঙ্কর এই ১৩ মাইল রাস্তা।

সিচুয়ান-তিব্বত হাইওয়ে, চিন ও তিব্বত
অসাধারণ সুন্দর এই রাস্তাটি চিনের সাংহাইয়ে শুরু হয়ে ৩৪০০ মাইল গিয়ে শেষ হয়েছে তিব্বতে। এই রাস্তার পদে পদে রয়েছে হেয়ারপিন বাঁক যা এটিকে ভয়ঙ্কর করে তুলেছে।

নর্থ ইয়ুঙ্গাস রোড, বলিভিয়া
বলিভিয়ার ৪০ মাইল দীর্ঘ এই রাস্তাটি ‘ডেথ রোড’ নামে খ্যাত। ঘন কুয়াশায় ঢাকা এই রাস্তায় গাড়ি চালানো মানে বিপদ ডেকে আনা।

কাবুল, আফগানিস্তান
তালিবান অধ্যুষিত এই এলাকার আরও বড় বিপদ হল এই রাস্তা। কাবুল থেকে জালালাবাদ পর্যন্ত বিস্তৃত এই রাস্তা পদে পদে বিপদ ডেকে আনে।

ফেয়ারি মিডোস রোড, পাকিস্তান
এমন নাম অথচ অত্যন্ত বিপদসঙ্কুল এই রাস্তাটি পৃথিবীর অন্যতম বিপদময় রাস্তা।

এসপিনাসো দেল দিয়াবলো, মেক্সিকো
‘ডেভিলস ব্যাকবোন’ নামে খ্যাত ৬ মাইল লম্বা এই রাস্তার পদে পদে রয়েছে হেয়ারপিন বাঁক। তবে চারিপাশের শোভা এখানে অসাধারণ।

ক্যানিং স্টক, অস্ট্রেলিয়া
শুকনো মরুপ্রায় অঞ্চলের মধ্য দিয়ে বিস্তৃত ১১৫০ মাইল এই রাস্তাটির পদে পদে রয়েছে বিপদ ও সৌন্দর্য।

বিআর ১১৬, ব্রাজিল
ব্রাজিলের দ্বিতীয় দীর্ঘতম হাইওয়ে এটি। ২৭২৫ মাইল দীর্ঘ এই রাস্তাটি ব্রাজিলে ‘দ্য হাইওয়ে অব ডেথ’ নামে খ্যাত। সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ঘটে এই রাস্তাতেই।

অ্যানি রোড, এরিট্রিয়া
এরিট্রিয়াতে বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষ পথ দুর্ঘটনায় মারা যান এই রাস্তায়। তবে ধীরে ধীরে পথদুর্ঘটনার সংখ্যা এখানে কমার পথে।